ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় জরুরি অবস্থা পাকিস্তানে


প্রকাশিত:
২২ জুন ২০২২ ১২:৩২

আপডেট:
২২ জুন ২০২২ ১৬:৩৬

পাকিস্তানে নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ-সহ যৌন নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে। বিশেষ করে দেশটির পাঞ্জাব প্রদেশে নির্যাতনের এই ঘটনা এতোটাই বেড়েছে যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ‘জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রদেশটি। বুধবার (২২ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা এএনআই।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আত্তা তারার বলেছেন, নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ-সহ যৌন নির্যাতনের মতো ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়া সমাজ এবং সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য একটি গুরুতর সমস্যা।

আত্তা তারারের উদ্ধৃতি দিয়ে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিও নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘পাঞ্জাবে প্রতিদিন চার থেকে পাঁচটি ধর্ষণের ঘটনা রিপোর্ট করা হচ্ছে। যার কারণে যৌন হয়রানি, অপব্যবহার এবং ধর্ষণের মতো ঘটনা মোকাবিলা করার জন্য বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বিবেচনা করছে সরকার।’

পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেছেন, ‘ধর্ষণের ঘটনা মোকাবিলা করার জন্য প্রশাসন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে।’

তিনি বলেন, এ বিষয়ে সুশীল সমাজ, নারী অধিকার সংগঠন, শিক্ষক ও আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করা হবে। এর পাশাপাশি নিজেদের সন্তানদের নিরাপত্তার গুরুত্ব শেখানোর জন্য অভিভাবকদের প্রতি আহ্বানও জানান তিনি।

তারার বলেছেন, ধর্ষণের বেশ কয়েকটি ঘটনায় অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে। সরকার ধর্ষণ বিরোধী অভিযান শুরু করেছে এবং স্কুলে এ ধরনের হয়রানি সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করা হবে।

পাঞ্জাবের এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, সন্তানদের কীভাবে রক্ষা করতে হয় তা মা-বাবাদের শেখার সময় এসেছে। সরকার দ্রুত গতিতে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহের সংখ্যা বাড়াবে। তার ভাষায়, ‘যৌন হয়রানির ঘটনা রোধে দুই সপ্তাহের মধ্যে একটি ব্যবস্থা কার্যকর করা হবে, যার ফলে এই ধরনের ঘটনাগুলো হ্রাস পাবে।’

পাকিস্তান লিঙ্গ সহিংসতা মহামারি এবং দেশের নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা মোকাবিলায় কার্যত সংগ্রাম করছে। গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ ইনডেক্স ২০২১ র‌্যাংকিং অনুসারে বিশ্বের ১৫৬টি দেশের মধ্যে পাকিস্তান ১৫৩তম অবস্থানে রয়েছে। মূলত এই তালিকায় ইরাক, ইয়েমেন এবং আফগানিস্তানের ঠিক ওপরে রয়েছে পাকিস্তান।



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top